ইসলামের ইতিহাস সাম্প্রতিক বিষয়

২৫ ডিসেম্বরে কি আসলেই ঈসা (আ) এর জন্ম হয়েছিল ?

২৫ ডিসেম্বরে কি আসলেই ঈসা (আ) এর জন্ম হয়েছিল ?

উত্তরঃ ২৫ ডিসেম্বরই ঈসা (আ) জন্ম গ্রহণ করেছেন তার কোন প্রমাণই নেই। [1] Christmas নামক কোন উৎসবের অস্তিত্বই নেই খ্রিস্টধর্মে। খ্রিস্টান লিডার ও যাজকদের বানানো উৎসব এটি।

খ্রিস্টানরা যখন রোমান এম্পায়ার শাসন করতে যায় তখন তারা দেখতে পায় যে সেখানে প্যাগান ধর্মের জয়জয়কার। প্যাগান ধর্মের রীতিনীতি জনপ্রিয়তা পাওয়া শুরু করলে খ্রিস্টান লিডাররা একটা ধর্মীয় উৎসবের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে। ২৫ ডিসেম্বরকেই তাই তারা ঈসা (আ) এর জন্মোৎসব পালন করার জন্য বেছে নেয়। অথচ ২৫ ডিসেম্বরে ঈসা (আ) এর জন্ম হয়েছে , এইরকম কোন প্রমাণ নেই বাইবেলে ।বরং তাঁর জন্ম তারিখ নিয়ে বিভিন্ন মত পাওয়া যায় ।

প্রমাণে বলা যায়–

“Lacking any scriptural pointers to Jesus’s birthday, early Christian teachers suggested dates all over the calendar. Clement. . . picked November 18. Hippolytus . . . figured Christ must have been born on a Wednesday . . . An anonymous document[,] believed to have been written in North Africa around A.D. 243, placed Jesus’s birth on March 28 ” [2]

প্যাগান ধর্মের লোকরা যাতে খ্রিস্টধর্ম গ্রহণে আগ্রহী হয় সেজন্যও ২৫ ডিসেম্বরে খ্রিস্টান লিডাররা উৎসব পালন করার সিদ্ধান্ত নেয় । প্যাগানদের ধর্মীয় উৎসব ‘Yule’ পালিত হয় Christmas এর ৪ দিন আগে মানে ২১ ডিসেম্বর , এছাড়া ১৭ – ২৪ ডিসেম্বর Saturnalia নামক ধর্মীয় উৎসব পালিত হয়। প্রথম Christmas পালিত হয় 336 CE তে ।

খ্রিস্টানরা ঈসা (আ) এর নামে বহু মিথ্যা কথা ছড়িয়েছে Christmas হল তার একটি। অবশ্য Pope Benedict XVI ঈসা (আ) জন্ম তারিখ ২৫ ডিসেম্বর নয় বলে স্বীকার করেছেন ।খ্রিস্টান ক্যালেন্ডারের জনক বলা হয় Dionysius Exiguus কে । পোপ বলেন যে ,Exiguus এর ক্যালকুলেশনে ভুল ছিল।

পোপ তার Jesus of Nazareth: The Infancy Narratives বইয়ে বলেন—

“ (Exiguus ) made a mistake in his calculations by several years. The actual date of Jesus’ birth was several years before.” [3]

এর মানে আমরা বর্তমানে যে ক্যালেন্ডার ফলো করি তা Accurate না। বরং হিজরী ক্যালেন্ডারই হল Accurate।

আফসোস লাগে ,যেখানে স্বয়ং পোপ ঈসা (আ) এর জন্মতারিখ ২৫ ডিসেম্বরকে অস্বীকার করছে , সেখানে ‘ পোপের থেকে বেশি খ্রিস্টান ‘ টাইপের কিছু মুসলিমকে কিছুদিন পর ‘Merry Christmas ‘ ‘Merry Christmas ‘ বলে উইশ করতে দেখা যাবে ফেসবুকে, স্পেশিয়ালি অসাম্প্রদায়িক শাহবাগীদের দেখতে পাবেন এই কাহিনী করতে ।

‘Merry Christmas ‘ উইশ করার আগে মাথায় দুইটা বিষয় রাখতে হবে—-

১) এটা হারাম। খ্রিস্টানরা বিশ্বাস করে ঈসা (আ) হলেন আল্লাহ্‌ তাআলার পুত্র (নাউযুবিল্লাহ্‌ ) আর এই শিরকী বিশ্বাসেই তারা ২৫ ডিসেম্বর ঈসা (আ) এর জন্মোৎসব পালন করে। এখন আপনি কি মুসলিম হয়ে ‘Merry Christmas ‘ বলে তাদের এই শিরকী উৎসবকে অস্বীকার না করে বরং তা সমর্থন করছেন ,যা স্পষ্ট হারাম । ‘Merry Christmas ‘ উইশ করা সম্পর্কে Islam Q&A এর এক ফতোয়ায় বলা হয়েছে——

“It is not permissible for him to congratulate them on their festivals in any way whatsoever, because that implies approval of their festival and not denouncing them, and helping them to manifest their symbols and propagate their innovation, and sharing their happiness during their festivals, which are innovated festivals that are connected to false beliefs that are not approved of in Islam . ” [4]

২) খ্রিস্টানরা একেবারেই ভিত্তিহীনভাবে ২৫ ডিসেম্বরে উৎসব পালন করে।এটা এক ধরনের মিথ্যা ঈসা (আ) এর নামে।
মুসলিমরা সকল নবী-রসূলগকে ভালবাসে ।তেমনি ঈসা (আ) কেও আমরা ভালবাসি । তাই তাঁর নামে প্রচারিত ভিত্তিহীন কোন কথাকে আমরা সমর্থন করতে পারি না এবং যারা এই ভিত্তিহীন উৎসব পালন করে তাদেরকেও সমর্থন করতে পারি না। তাই যারা ঈসা (আ) কে সত্যই ভালবাসেন তারা কখনোই ‘Merry Christmas ‘ বলে কাউকে উইশ করবে না ।
আশা করি সতর্ক থাকবেন ।

তথ্যসূত্রঃ
[1] All About History , Issue 2 , page-64

[2] (Jeffery Sheler, U.S. News & World Report, “In Search of Christmas,” Dec. 23, 1996, p. 58).

[3 ] newsfeed .time .com/2012/11/22/pope-benedict-disputes-jesus-date-of-birth/

[4] http://www.islamqa.com/en/ref/81977

সূত্র

মতামত দিন