নারী সাম্প্রতিক বিষয়

ভারতীয় টিভি চ্যানেল ও আমাদের নারী সমাজ

    ভারতীয় টিভি চ্যানেল ও আমাদের নারী সমাজ

জনি সিদ্দিক

মিডিয়ার কল্যাণ আছে অস্বীকার করিনা। তবে কতটুকু কল্যাণ ? আমরা বিশ্বের দৈনন্দিন খবরাদি আর মাঝে মাঝে একটু ইসলামি অনুষ্ঠান দেখতে পারি। এই ব্যাস ! আর কি ? আর বাকি সবটুকুই অকল্যাণ ! বর্তমানে এই অকল্যাণ আরো জেঁকে বসেছে। সব জায়গাতেই পৌঁছে যাচ্ছে এই ডিস ক্যাবল লাইন। সবাই সামান্য একটু অবসর পেলেই রিমোট কন্ট্রোল হাতে নেয়। গ্রামের কিছু ও শহরের গৃহকর্মীরা সাধারণত ঘরে শুয়ে বসেই সারাটি দিন কাটান। আর তাই সময় কাটানোর জন্য টিভি সেটকে বেছে নেন। বিদ্যুতের সংযোগ, অতঃপর রিমোট হাতে নিয়েই ভারতীয় চ্যানেল অন ! এবং সারাটি দিন ওই ভারতের চ্যানেলেই চলে যায়। সে কি বাহারি সব নাম ! স্টার নামেই আছে অনেক। শোনা যাক কিছু। স্টার জলসা, স্টার প্‌লাস, এস বাংলা, স্টার গোল্ড, সনি টিভি, স্টার মুভিজ, স্টার ক্রিকেট, জি বাংলা, জি সিনেমা ইত্যাদি ইত্যাদি আরো অনেক ! এখন মনে আসছেনা। এসব চ্যানেল হিন্দু প্রধান দেশের হওয়ায় এর মূল বিষয়বসতুই হলো হিন্দুয়ানি কালচার। সঙ্গে আধুনিক কালের ধ্যান ধারণা ! অর্ধ নগ্ন সব বিজ্ঞাপনে ভরপুর ভারতের চ্যানেলগুলো।

 

আমাদের দেশের নারী সমাজ খুব সাদাসিধে হিসেবে খ্যাত ছিলো ! কিন্তু এখন তা কি আর আছে ? এই সাদাসিধে নারীদের সবচেয়ে প্রিয় টিভি চ্যানেল হলো স্টার গ্রুপের চ্যানেলগুলো ! যাদের প্রত্যেকটি সিরিয়ালই নাকি প্রেম-ভালোবাসা নিয়ে তৈরি ! স্বামী স্ত্রীর  মনোমালিন্য, ঝগড়া এসব দিয়েই চলে সেসব। শ্বশুর-শাশুড়ি তো ফ্যাক্টরই নয় সেখানে ! আর এসব দেখেই সময় কাটে এখন আমাদের নারী সমাজের। এর প্রতিক্রিয়া যে হবেনা তা কি করে হয় ! মা-দের সঙ্গে এসব অনুষ্ঠান দেখার ফলে শিশুরাও বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করছে ! ভারতীয় সংস্কৃতির গানই এখন আমাদের দেশের সঙ অব দ্য কান্ট্রি ! ছোট-বড়ো নেই সবার মুখেই শুনি ভারতীয় ছায়াছবির গান ! ভারতীয় সংস্কৃতি কতটুকু প্রভাব ফেলেছে, সম্প্রতি দেশ কাঁপানো গান পাগলু, ফুলকলি ইত্যাদিই এর প্রমাণ বহন করে !

 

বাংলাদেশের নারীদের সবচেয়ে প্রিয় চ্যানেল হলো স্টার জলসা। তারপর ? তারপরেও ওই স্টার গ্রুপেরই ! দেশী চ্যানেলগুলো তাদের সবচেয়ে বেশি বিরক্তিকর ! বিশেষ করে ইসলামিক অনুষ্ঠান ও ইসলামিক টিভি, পিস টিভি তাদের প্রধান শত্রু !! আমাদের গ্রামে দেখেছি স্টার জলসা না দেখলে অনেক মেয়েদের সারাদিন মনে শান্তি হয়না ! দুর্ঘটনাবশত কোনো একদিনও যদি এ চ্যানেলগুলো না থাকে তবে ক্যাবল ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পতিদের আনতরিকতা বেড়ে যায়। তাদের কন্ঠে অনুনয় বেড়ে যায় ! ভাই কবে ? বাড়িতে তো আর থাকা যাচ্ছেনা ! তাড়াতাড়ি দেন! অনেক বাড়িতে স্বামী-স্ত্রী মধ্যে তুমুল ঝগড়া চলে ! কারণ স্বামী দেশী চ্যানেলের খবর দেখতে চাইলে স্ত্রী দেখবে মেগা সিরিয়াল। এ নিয়ে বেশ মনোমালিন্যও চলে ! ফেসবুকে তাই জনৈক ভাই একটি পোস্ট দিয়েছিলেন যে, আপনি যদি আপনার স্ত্রীকে কিছু না বলে তালাক দিতে চান, তাহলে ঘর থেকে শুধুমাত্র ভারতীয় চ্যানেলগুলোর লাইন বিচ্ছিন্ন করে দিন। তারপরে দেখবেন আপনাকে আর কষ্ট করে তালাক শব্দ উচ্চারণ করতে হবেনা ! আপনার স্ত্রীই আপনাকে তালাক দিবে !! কথাটুকু হাস্যকর হলেও নির্মম সত্য ! তাই আমাদের সু-সভ্য সমাজকে রক্ষা করতে হলে এখনই ভারতীয় টিভি চ্যানেলের দৌরাত্য বন্ধ করতে হবে। ভারতীয় টিভি চ্যানেলের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে আমাদের (indian chanel nirmul komiti) ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিন। আসুন আমরা একযোগে এসবের বিরুদ্ধে গণজনমত সৃষ্টি করি। আল্লাহ আমাদের সহায় হোন।

 

মতামত দিন