ইস্তিগফার

বিখ্যাত ইসলামি চিন্তাবিদ ও জনপ্রিয় ধর্মতত্ত্ববিদ ইমাম আহমদ বিন হাম্বল (রাহিমাহুল্লাহ) তাঁর বৃদ্ধাবস্থায় একবার ভ্রমণ করা সময়ের ঘটনা। রাত বেশি হওয়ার কারণে তিনি এক শহরে রাত্রি যাপনের উদ্দেশ্যে যাত্রাবিরতি করলেন। মসজিদে এশার সালাত আদায়ের পর সেখানেই তিনি রাতে থাকবেন বলে মনস্থির করলেন। তিনি ছিলেন অত্যন্ত বিনয়ী। সেজন্য তিনি মসজিদে নিজের পরিচয় গোপন রেখেছিলেন এই ভেবে যে অনেক মানুষ তাঁকে ঘিরে ধরবে।

মসজিদের খাদেম তাঁকে চিনতে পারে নি বিধায় তাঁকে সেখানে থাকতে দিলো না। মসজিদ সংলগ্ন একটি রুটির দোকান ছিলো। রুটি তৈরিকারক তাদের দুইজনের আলাপ শুনছিল। সে ইমাম আহমদকে তার বাসায় রাতে থাকার জন্য নিয়ে আমন্ত্রণ জানালেন এবং সাথে নিয়ে আসলেন।

ইমাম আহমদ (রাহিমাহুল্লাহ) রুটি তৈরির প্রতিটি ধাপ দেখতে লাগলেন। আটার মন্ড তৈরি, খামির করা, রুটিবেলা, সেঁকা ইত্যাদি। সারা রাত রুটির কারিগর রুটি বানাচ্ছিল আর ক্রমাগত ইস্তিগফার করছিল (আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করা)।

সকালে তিনি রুটিওয়ালার কাছে জানতে চাইলেন সারা রাত সে কেন ইস্তিগফার করছিল? জবাবে সে জানালো এটি তার এমন এক স্বভাব যা এখন পুরোপুরি অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। ইমাম আহমদ ইবনে হাম্বল (রাহিমাহুল্লাহ) আরো জানতে চাইলেন যে এর ফলে কি সে কোন পুরস্কার পেয়েছে? সে বললো, ” আল্লাহর কসম! আমি কোন কিছু চাইনি একটি চাওয়া ছাড়া।” তখন তিনি বললেন কি সেটা?

রুটিওয়ালা জানালো, “বিখ্যাত চিন্তাবিদ ইমাম আহমদ ইবন হাম্বলকে আমি যেন দেখতে পাই।”

এই কথা শুনে ইমামের চোখে আনন্দের অশ্রু চলে এলো এবং আবেগে তিনি তাকে জড়িয়ে ধরলেন।

এইবার তিনি নিজের পরিচয় দিলেন, “আমি ইমাম আহমদ ইবনে হাম্বল। এই কথা শুনে এখন আমার মনে হচ্ছে মহান আল্লাহ তাআলা বুঝি আমাকে পাঠিয়েছেন তোমার মনোবাসনা যেন পূর্ণ হয়।”

এই ঘটনাটি জানার পর আমরা নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন যে বারবার মহান আল্লাহ সুবহানহু তালার দরবারে ক্ষমা প্রার্থনা কতটা ফজলিতপূর্ণ।

তাফসীর আল-কুরতুবী থেকে বর্ণিত: জনৈক ব্যক্তি আল হাসান আল বাসরীর কাছে এসে অভিযোগ করলেন যে তার এলাকাজুড়ে দীর্ঘদিন ধরে অনাবৃষ্টি হচ্ছে। তারা এখন কি করবে? তিনি বেশি বেশি ইস্তিগফার করতে বললেন।

আরেকজন হাসান আল-বাসরির কাছে এসে অভিযোগ করলো যে সে চরম দরিদ্র। সে কি করবে? তিনি বললেন, ইস্তিগফার কর।
আরো একজন বললো সে নি:সন্তান। তার হয়ে আল্লাহর কাছে তিনি যেন একটু দুয়া করেন। তিনি বললেন তুমি নিজে ইস্তিগফার কর।

আরেক ব্যক্তি জানালো তার বাগান অতি শুষ্ক। তিনি বললেন, ইস্তিগফার কর।

একদা তার কাছে জানতে চাওয়া হলো সব কিছুতেই তিনি ইস্তিগফার করতে বলেন কেন? জবাবে তিনি বললেন এটা তাঁর ব্যক্তিগত মতামত না, আল্লাহ কুরআনে এই তিনটির জন্যে ক্ষমা প্রার্থনা করতে বলেছেন, তাহলে তিনি এই তিনটির সমাধান করে দিবেন।

মহান আল্লাহতাআলা পবিত্র কুরআনে সুরা নূহ-তে
বলেনঃ

“অতঃপর বলেছিঃ তোমরা তোমাদের পালনকর্তার ক্ষমা প্রার্থনা কর। তিনি অত্যন্ত ক্ষমাশীল। (১০)

(তাহলে) তিনি তোমাদের উপর অজস্র বৃষ্টিধারা ছেড়ে দিবেন, (১১)

তোমাদের ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি বাড়িয়ে দিবেন, তোমাদের জন্যে উদ্যান স্থাপন করবেন এবং তোমাদের জন্যে নদীনালা প্রবাহিত করবেন। (১২)

তাফসীর আল-কুরতুবী

(১৮/৩০১-৩০২)

সুত্র

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
slot gacor skybet88 slot online skybet88 skybet88 skybet88 slot gacor skybet88 skybet88 slot bonus new member skybet88 slot shopeepay skybet88 skybet88 skybet88 slot shopeepay slot gacor skybet88 demo slot skybet88 skybet88 skybet88 skybet88 skybet88