জীবনী

ড. আবু আমিনাহ বিলাল ফিলিপস এর জীবনী

ড. আবু আমিনাহ বিলাল ফিলিপস

জন্ম ও পরিচয়:
ড. আবু আমিনাহ বিলাল ফিলিপস ৬ জানুয়ারী ১৯৪৬ সালে জ্যামাইকায় একটি খ্রিস্টান পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। বড় হন কানাডায়। তার পূর্বের নাম ছিল ডেনিস ব্র্যাডলি ফিলিপস। বর্তমানে তিনি কাতারে বসবাসরত আছেন।

ষাটের দশকের শেষ দিকে ভ্যানকুভারে সাইমন ফ্রেসার ইউনির্ভাসিটিতে পড়া অবস্থায় সেখানকার বামপন্থী ছাত্র আন্দোলনে যোগদান করেন। ধীরে ধীরে তাঁর কম্যুনিজমের প্রতি আগ্রহ জন্মায় এবং তিনি কম্যুনিস্ট আদর্শ গ্রহণ করেন। তিনি একবছর স্যান ফ্রান্সিস্কোতে কম্যুন্সিট পার্টির সাথে কাজ করার পর এই দলের কর্মকান্ডের আসল রূপ দেখতে পেয়ে পুনরায় কানাডায় ফিরে আসেন। কম্যুনিস্ট দর্শন তাঁকে সন্তুষ্ট করতে পারছিল না, এ দর্শন সমাজকে পরিবর্তনের কথা বললেও পরিবর্তন আনার মত বাস্তবধর্মী হাতিয়ার এর ছিল না, তাছাড়া কম্যুনিস্ট দর্শন প্রস্তাবিত অর্থনৈতিক ব্যবস্থা ছিল ব্যর্থ, আর শ্রমজীবী শ্রেণীর স্বার্থের নামে পরিচালিত গণ নির্যাতনকে তিনি মেনে নিতে পারছিলেন না। তাছাড়া বহু বামপন্থী নেতাই ব্যক্তিগত জীবনে ছিলেন অত্যন্ত অসৎ ও অনৈতিক। অবশেষে তিনি কম্যুনিজম ত্যাগ করেন এবং হিন্দুধর্ম, বৌদ্ধধর্ম প্রভৃতি অন্যান্য ধর্ম ও দর্শন পরখ করে দেখেন।

ইসলাম গ্রহণ:
১৯৭১ সালে তাঁর এক কম্যুনিস্ট বন্ধু ইসলাম গ্রহণ করলে তিনি ইসলামের প্রতি আকৃষ্ট হন এবং ইসলাম সম্পর্কে পড়াশুনা শুরু করেন। তিনি উপলব্ধি করেন যে ইসলামই মানবজাতির জন্য শ্রেষ্ঠ সমাধান উপস্থাপন করে, এতে রয়েছে সমাজবাদী এবং পুঁজিবাদী দর্শনের ভাল দিকগুলোর সমন্বয়। ছয়মাসের পড়াশুনা এবং আলোচনা-পর্যালোচনার পর তিনি ১৯৭২ সালে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। এর একবছর পর তিনি মদীনার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন শুরু করেন।

১৯৭৯ সালে তিনি মদীনার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উসুল আল দ্বীন অনুষদ থেকে আরবী ভাষায় ডিপ্লোমা এবং বি.এ. ডিগ্রী লাভ করেন। ১৯৮৫ সালে তিনি রিয়াদ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘ইসলামিক থিওলজি’ তে এম.এ. ডিগ্রী লাভ করেন। একই বিষয়ের ওপর তিনি ১৯৯৪ সালে ডক্টরেট ডিগ্রী নেন ইউনিভার্সিটি অব ওয়েলস এর ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদ থেকে।

দাওয়াহ কার্যক্রম:
উপসাগরীয় যুদ্ধের সময় ও এর ঠিক পরপর তিনি তাঁর কয়েকজন সঙ্গী সহ সৌদি আরবে অবস্থিত মার্কিন বাহিনীর কাছে ইসলামের বিশুদ্ধ শিক্ষাকে উপস্থাপন করার এক প্রোজেক্ট হাতে নেন, মার্কিন সেনাদের মাঝে বিদ্যমান ইসলাম সম্পর্কে ভুল ধারণা দূর করা ছিল তাঁদের এই প্রোজেক্টের লক্ষ্য। তাঁদের এই প্রচেষ্টায় তিন হাজারের ওপর মার্কিন সেনা ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন। ১৯৯৪ সাল থেকে তিনি আরব আমিরাতে বসবাসরত ছিলেন। সেখানে থেকে তিনি অধ্যাপনা, প্রকাশনা, খুতবা এবং বক্তৃতার মাধ্যমে ইসলামের বিশুদ্ধ শিক্ষাকে প্রচারের কাজ করে আসছিলেন।

তিনি সারজাহতে দার আল ফাতাহ প্রেস, দুবাইতে ডিসকভার ইসলাম নামক ইসলাম প্রচার কেন্দ্র, সারজাহ টিভি চ্যানেল-২, স্যাটেলাইট (ইসলামী চ্যানেল), আজমান টিভি চ্যানেল-৪ এবং সৌদি টিভি চ্যানেল-২ এর সাথে ইসলাম প্রচারের কাজে জড়িত ছিলেন। তিনি বর্তমান বিশ্বের নামকরা ইসলামী পন্ডিত এবং চিন্তাবিদদের অন্যতম। তিনি ইসলামিক চ্যানেল পিস টিভিরও একজন বক্তা।

ইসলামিক অনলাইন ইউনিভার্সিটি:
ইসলামিক অনলাইন ইউনিভার্সিটি হল প্রখ্যাত স্কলার ডক্টর আবু আমিনাহ বিলাল ফিলিপসের চিন্তা ও প্রচেষ্টার ফসল এবং এক মহতী উদ্যোগ। তিনি ইসলামিক অনলাইন ইউনিভার্সিটি (www.islamiconlineuniversity.com) নামে কাতারে একটি বিশ্ববিদ্যালয় মানের অনলাইনভিত্তিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। অনলাইনে ইসলামভিত্তিক বিষয়সমূহ থেকে পড়াশুনার মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় ডিগ্রি অর্জনের সুব্যবস্থা রয়েছে এই ওয়েবসাইট বিশ্ববিদ্যালয়টিতে। এই প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে বিলাল ফিলিপস তার ওয়েবসাইটে বলেন, “দূরশিক্ষণ বর্তমানে একটি কার্যকরী ব্যবস্থা হয়ে উঠছে, যার মাধ্যমে সাধারণ মুসলিমরা তাদের বিশ্বাস সম্পর্কে শিক্ষালাভ করতে পারবে।” বর্তমানে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় ভারত, বাংলাদেশ, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা এবং মালদ্বীপসহ পৃথিবীর অধিকাংশ দেশেই এর দাপ্তরিক শাখা বিদ্যমান এবং শাখা ভুক্ত দেশ সহ তার বাহিরেও বহুসংখ্যক শিক্ষার্থী রয়েছে।

প্রকাশনা:
তাঁর অনেকগুলো প্রকাশনা ও বক্তৃতার ভিডিও রয়েছে। আমাদের দেশীয় বিভিন্ন প্রকাশনী ড. আবু আমিনাহ বিলাল ফিলিপস এর লেখা বই বাংলায় অনুবাদ করে প্রকাশ করে থাকে।

তার লেখা কয়েকটি বই:

– Fundamentals of TAWHEED (Islamic Monotheism), International Islamic Publishing House; (ISBN 9960-9648-0-9) (বাংলায় অনুবাদ হয়েছে, নামঃ তাওহীদের মূল সূত্রাবলি, প্রকাশকঃ তাওহীদ প্রকাশনী, নামঃ ‘এক’, প্রকাশকঃ সিয়ান প্রকাশনী )
– The Evolution of Fiqh (Islamic Law & The Madh-habs), International Islamic Publishing House (Edited by Bradley Philips); (ISBN 9960-672-86-7) (নামঃ ‘মাযহাব’, প্রকাশকঃ সিয়ান প্রকাশনী )
– True Message of Jesus Christ, Islamic Book Services 2006; (ISBN 81-7231-360-8)
– Purpose of Creation 84pp, Islamic Book Services 2002; (ISBN 81-7231-358-6)( নামঃ ‘স্রষ্টা, ধর্ম ও জীবন’, প্রকাশকঃ সিয়ান প্রকাশনী )
– Funeral Rites, International Islamic Publishing House; (ASIN 9960850846)
– Polygamy in Islam, Islamic Book Services; (ISBN 81-7231-715-8)
– Islamic Studies, Al-Basheer 2002; (ISBN 1-898649-19-7)

বিঃ দ্রঃ লেখকের অনেক বই বাংলায় অনুবাদ করে সিয়ান প্রকাশনী বের করছে

আবু আমিনাহ বিলাল ফিলিপসের কিছু উক্তি-

”একজন মুসলিম স্বামীর প্রথম কর্তব্য হলো তার স্ত্রীকে আধ্যাত্মিক পথের নির্দেশনা দেয়া।”

“আমরা যা শিখছি তা যদি আমাদের বিশ্বাসের উপর কোন প্রভাব ফেলতে না পারে, আমাদেরকে আল্লাহর কাছাকাছি নিয়ে যেতে না পারে, আমাদের বিশ্বাসকে আরো মজবুত করতে না পারে… তাহলে এর অর্থ হচ্ছে আমাদের উদ্দেশ্যে, নিয়্যতে ভুল আছে”

“আপনি যেদিন উপলব্ধি করবেন ইসলামের জন্য কী বিশাল পরিমাণ কাজ করা প্রয়োজন অথচ হাতে কতটা কম সময় রয়েছে, সেদিন বুঝতে পারবেন ছুটির দিন কাটানোর মতো কোন সময় নেই।”

উল্লেখ্য যে, অল্প কিছুদিন আগে ইসলামের বাণী প্রচারে তাঁর স্পষ্টবাদিতার কারণে তাঁকে আরব আমিরাত ত্যাগ করতে হয়। ২০১৪ সালে সিয়ান পাবলিকেশনস নামে একটি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে বিলাল ফিলিপসকে বাংলাদেশে বক্তৃতার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়। এ উপলক্ষে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করে প্রতিষ্ঠানটি। ১৭ই জুন তিনি বাংলাদেশে আসেন। কিন্তু গোয়েন্দা তৎপরতার মাধ্যমে অনুমিত তথ্য অনুযায়ী তাকে সন্দেহভাজন আশঙ্কা করার কারণে বাংলাদেশে তার বক্তৃতা অনুষ্ঠানের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে

সরকার। ফলে অনুষ্ঠান বাতিল করা হয় এবং ১ দিন পর ১৮ই জুন সরকারি নির্দেশে তিনি বাংলাদেশ ত্যাগ করেন।

# বিলাল ফিলিপস এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট: www.bilalphilips.com

মতামত দিন