ইসলামিক গল্প

আবু যার গিফারী (রাঃ)-এর ইসলাম গ্রহণের ঘটনা

আবু যার গিফারী (রাঃ)-এর ইসলাম গ্রহণের ঘটনা

রচনায় :- আব্দুল্লাহ শাহেদ মাদানী

আব্দুল্লাহ্ ইবনে আব্বাস (রাঃ) হতে বর্ণিত, আবু যার (রাঃ) বলেনঃ আমি ছিলাম গিফার গোত্রের একজন লোক। আমাদের কাছে সংবাদ পৌঁছল যে, মক্কায় একজন লোক নবুওয়াতের দাবি নিয়ে বের হয়েছে। আমি আমার ভাইকে বললামঃ তুমি ঐ লোকটির কাছে যাও এবং তার সাথে আলাপ করে আমার নিকট তার খবর নিয়ে আস। সে গেল এবং তাঁর সাথে দেখা করে ফিরে এল। আমি আমার ভাইকে বললামঃ কি খবর নিয়ে এসেছ? সে বললঃ আল্লাহর কসম! আমি একজন লোককে দেখেছি, সে সৎ কাজের আদেশ দেয় এবং মন্দ কাজ থেকে বারণ করে। আমি বললামঃ তোমার এতটুকু খবরে আমি পরিতৃপ্ত হতে পারলাম না।
তারপর আমি এক থলে খাবার এবং একটি লাঠি নিয়ে নিজেই মক্কা অভিমুখে রওয়ানা হলাম। আমি তাকে চিনতাম না এবং তার সম্পর্কে কাউকে জিজ্ঞেস করাও সমীচীন মনে করলাম না। তাই আমি যমযমের পানি পান করতে এবং মসজিদে অবস্থান করতে থাকলাম। একদিন আলী (রাঃ) আমার নিকট দিয়ে যাওয়ার সময় বললেনঃ মনে হচ্ছে লোকটি বিদেশী। আবু যার (রাঃ) বলেনঃ আমি বললামঃ হ্যাঁ। তিনি বললেনঃ তাহলে আমার বাড়ি চল। তাই আমি তার সাথে চললাম। তিনি আমাকে কিছুই জিজ্ঞেস করলেন না, আমিও তাকে কিছু জানালাম না। রাতটা তার বাড়িতেই কাটালাম। সকাল বেলা লোকটি সম্পর্কে জিজ্ঞেস করার জন্যে আমি মসজিদে আসলাম। কিন্তু আমাকে তার সম্পর্কে কেউ কিছুই জানাল না।
তারপর আলী (রাঃ) আবার আমার পাশ দিয়ে যাবার সময় বললেনঃ লোকটির কি এখনও কোন থাকার ব্যবস্থা হয় নি? আমি বললামঃ না। তিনি বললেনঃ তাহলে আমার সাথে চল। আবু র্যা বলেনঃ তিনি আমার কাছে জিজ্ঞেস করলেনঃ তোমার খবর কি? কি জন্যে এ শহরে এসেছ? আবু র্যা বলেনঃ আমি বললামঃ যদি আপনি গোপন রাখেন, তাহলে আপনাকে জানাব। তিনি বললেনঃ আমি তাই করব। আমি বললামঃ আমাদের কাছে সংবাদ এসেছে যে, এখানে একজন লোকের আবির্ভাব হয়েছে, যিনি নিজেকে নবী বলে দাবি করেন। আমি তার সাথে কথা বলার জন্যে আমার ছোট ভাইকে প্রেরণ করলাম। সে ফিরে এসে আমাকে কোন সন্তোষ জনক খবর দিতে পারল না। তাই আমি স্বয়ং তার সাথে সাক্ষাৎ করতে চাইলাম। তখন আলী (রাঃ) বললেনঃ তুমি সঠিক পথেই পরিচালিত হয়েছ। আমার মুখ তার দিকে। অর্থাৎ আমি তার দিকেই যাচ্ছি। সুতরাং আমার সাথেই চল। আমি যেখানে প্রবেশ করব, তুমিও সেখানে প্রবেশ করবে। আর পথিমধ্যে তোমার জন্যে যদি ক্ষতিকর কিছু দেখি তবে আমি জুতা ঠিক করার ভান করে প্রাচীরের পাশে গিয়ে দাঁড়াব। তুমি যেতেই থাকবে। (যাতে কেউ বুঝতে না পারে যে, তুমি আমার সাথী)
তিনি চললেন। আমিও তার সাথে চললাম। অবশেষে তিনি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের দরবারে প্রবেশ করলেন। আমিও তার সাথে প্রবেশ করলাম। আমি বললামঃ আমার সামনে ইসলাম পেশ করুন। তিনি আমার সামনে ইসলাম পেশ করলেন। আমি তৎক্ষণাৎ সেখানেই ইসলাম গ্রহণ করলাম। তারপর তিনি আমাকে বললেনঃ হে আবু যার! তোমার ইসলাম গ্রহণের ব্যাপারটি আপাতত গোপন রাখ এবং তোমার দেশে চলে যাও। তুমি যখন জানতে পারবে যে, আমাদের বিজয় অর্জিত হয়েছে এবং আমরা শক্তিশালী হয়েছি তখন চলে আসবে। আমি বললামঃ যিনি আপনাকে সত্য সহকারে প্রেরণ করেছেন, সেই সত্তার শপথ! আমি এখনই তাদের সামনে উচ্চস্বরে তাওহীদের এই মর্মবাণী ঘোষণা করব। অতঃপর তিনি মসজিদে এসে উপস্থিত হলেন। কুরাইশরাও সেখানে উপস্থিত ছিল। তিনি বললেনঃ হে কুরাইশ দল! আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, আল্লাহ্ ছাড়া সত্য কোন উপাস্য নেই এবং মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আল্লাহর বান্দা ও রাসূল। অতঃপর কুরাইশ সম্প্রদায় বলে উঠলঃ এই ধর্মত্যাগী লোকটিকে পাকড়াও কর। তারা সকলেই আমার দিকে অগ্রসর হয়ে এমন প্রহার করতে লাগল, যাতে আমি মারা যাই। তখন আব্বাস আমার কাছে এসে পৌঁছলেন এবং আমাকে ঘিরে রাখলেন। তারপর তিনি কুরাইশদের লক্ষ্য করে বললেনঃ তোমাদের ধ্বংস অনিবার্য। তোমরা কি গিফার গোত্রের একজন লোককে হত্যা করছ? অথচ তোমাদের ব্যবসায়ের কাফেলা ও যাতায়াতকারীগণ তাদের পাশ দিয়ে চলাচল করে। তারা আমাকে ছেড়ে দিল।
পরদিন ভোরবেলা আমি কাবা ঘরে উপস্থিত হলাম এবং পূর্বের দিন যা বলেছিলাম, তাই বললাম। তারা বললঃ এই ধর্মত্যাগী লোকটির দিকে অগ্রসর হও। আমাকে প্রথম দিনের মতই প্রহার করা হল। এবারও আব্বাস আমার কাছে এসে পৌঁছলেন এবং আমাকে ঘিরে রাখলেন। তিনি প্রথম দিন যা বলেছিলেন, তাই বললেন। ইবনে আব্বাস বলেনঃ এটিই ছিল আবু যার (রাঃ)এর ইসলাম গ্রহণের প্রথম অবস্থা।

উত্স

মতামত দিন