প্রশ্ন ও উত্তর

ইসলামে সম্পদ সঞ্চয়ের বিধান

প্রশ্নঃ কেন ইসলাম সম্পদ সঞ্চয় করতে নিষেধ করে ?

উত্তরঃ ইসলামে সার্বিকভাবে সম্পদ পুঁজি করে রাখা নিষিদ্ধ নয়। যেটা নিষিদ্ধ এবং যে ব্যাপারে কঠোর সতর্কবাণী দেয়া হয়েছে, তা হলো, সম্পদের উপর যাকাত না দেওয়া। কেউ যদি তার সঞ্চিত সম্পদের যাকাত যথাযথভাবে দিয়ে দেয়, তবে তার জন্য সঞ্চিত সম্পদ হালাল হয়ে যায়।

আল্লাহ বলেন, “হে ঈমানদারগণ, নিশ্চয় পন্ডিত ও সংসার বিরাগীদের অনেকেই মানুষের ধন-সম্পদ অন্যায়ভাবে ভক্ষণ করে, আর তারা আল্লাহর পথে বাধা দেয় এবং যারা সোনা ও রূপা পুঞ্জীভূত করে রাখে, (এখানে গচ্ছিত সম্পদ কে আল ‘কান্‌য’ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। ‘কান্‌য’ হল সেই গচ্ছিত সম্পদ যার উপর যাকাত দেওয়া হয় না) আর তা আল্লাহর রাস্তায় খরচ করে না, তুমি তাদের বেদনাদায়ক আযাবের সুসংবাদ দাও।” (আত-তাওবাহ ৯:৩৪)

উম্মু সালামাহ (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ তিনি বলেন, মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ যে সম্পদ নিসাব পরিমাণ হয় এবং তার যাকাত দেয়া হয়, তা ‘কান্‌য’ নয়।” (সুনানে আবু দাউদ, হাদিস নং ১৫৬৪)

আলবানি রাহিমাহুল্লাহ এই হাদিস কে হাসান বলেছেন।

ইমাম মালিক রাহিমাহুল্লাহ তার আল মুয়াত্তা গ্রন্থে বর্ণনা করেন,”আব্দুল্লাহ ইবনে দিনার বলেন: আমি শুনেছি, আব্দুল্লাহ ইবনে আমর কে  ‘কান্‌য’ কি এ সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, ‘কান্‌য’ হল সেই সম্পদ যার উপর যাকাত দেওয়া হয় না।”

ইবনে কাসির সুরা তওবার ৩৪ নং আয়াতের তাফসীরে বলেন, “নবীজী (সাঃ) বলেনঃ ‘কান্‌য’ হল সেই সম্পদ যার উপর যাকাত আদায় করা হয়নি। ইমাম মালিক প্রাণ সম্পর্কে এই হাদিস আব্দুল্লাহ ইবনে দিনার থেকে বর্ণনা করেন। আব্দুল্লাহ ইবনে দিনার তা বর্ণনা করেন আব্দুল্লাহ ইবনে উমর থেকে। সুফিয়ান আস সাওরী এবং অন্যরা উবাইদাল্লাহ থেকে একটি হাদিস বর্ণনা করেন। উবাইদাল্লাহ তা বর্ণনা করেন নাফি থেকে। হাদীসটি হলো, ইবনে উমার (রাঃ) বলেনঃ যে সম্পদের উপর যাকাত দেয়া হয় তাকে ‘কান্‌য’ বলা যাবে না যদিওবা তা সপ্ত পৃথিবীর নিচে পুঁতে রাখা হয়। কিন্তু যে সম্পদের উপর যাকাত দেয়া হয় না তা হলো ‘কান্‌য’, যদিও বা সে সম্পদ পুঁতে ফেলা না হয় বা প্রকাশিত থাকে। এই হাদিস ইবনে আব্বাস, জাবির এবং আবু হুরায়রা (রাঃ) কর্তৃক বিবৃত এবং তা মওকুফ ও মারফু উভয় বিবরণীতে পাওয়া যায়। উমর ইবনুল খাত্তাব (রাঃ) ও একই রকম হাদীস বর্ণনা করেছেন। তিনি বলেন, “যে সম্পদের ওপর যাকাত দেওয়া হয় তা ‘কান্‌য’ নয় যদিও তা মাটির নিচে পুঁতে রাখা হয় এবং যে সম্পদের উপর যাকাত দেয়া হয় না তাই হলো ‘কান্‌য’। আর যাকাত আদায় না করার কারণে এই সম্পদের মালিক কে পুনরুত্থানের দিন চিহ্নিত করা হবে যদিওবা এই সম্পদ পৃথিবীর বুকে প্রকাশ্যে থাকে।”

কাজেই সেই সম্পত্তি পুঁজি করে রাখা ইসলামে নিষিদ্ধ, যার উপর যাকাত আদায় করা হয় না। সম্পদ যদি যাকাতের নিসাব অতিক্রম না করে কিংবা সম্পদের উপর যথাযথ পরিমাণে যাকাত আদায় করা হয় তবে সেই সম্পদ কারণ হিসেবে গণ্য হবে না।

অতএব, ইসলাম সম্পদ সঞ্চয় করতে নিষেধ করে না। ইসলামে যেটা নিষিদ্ধ তা হল সঞ্চিত সম্পদের উপর যাকাত না দেয়া।

আল্লাহ সব থেকে ভাল জানেন।

প্রশ্নের উত্তরটি সংগ্রহ করা হয়েছে এখান থেকে।

অনুবাদক : আশরিন তামিম

মতামত দিন