তাবলীগ

সুন্দর ও সাবলীলভাবে অবিকৃত ইসলাম প্রচার

বাজারে গেলে দেখবেন মাছের দোকানি কিছুক্ষণ পর-পর মাছে পানি ছিটিয়ে দিচ্ছে। কেন দিচ্ছে? দিচ্ছে এই জন্যে যে – তাঁর মাছগুলো যেন ক্রেতার দৃষ্টিকে আকর্ষণ করে। কাঁচা বাজারে যান; দেখবেন সবজি বিক্রেতা ঠিক একই কাজ করছে – সবজির উপর পানি ছিটাচ্ছে। কেন ছিটাচ্ছে? তাঁর সবজিগুলো যেন সতেজ থাকে। খরিদদার দেখে যাতে পছন্দ করে। গোশত বিক্রেতা গরুর বিশাল রান দোকানের সামনে টানিয়ে রাখে। কেন রাখে? ক্রেতা যাতে তাঁর পণ্যকে এড়িয়ে না যায়। খদ্দেরের নজর যেন তাঁর পণ্যের দিকে পড়ে।

প্রত্যেক বিক্রেতাই স্বীয় পণ্যকে ক্রেতার সামনে আকর্ষণীয় করে উপস্থাপন করে। পণ্যকে যথাসম্ভব পরিপাটি করে ক্রেতার সামনে তুলে ধরে। ক্রেতার চোখকে ধাঁধিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। তাদের উদ্দেশ্য একটাই – ক্রেতার চিত্তাকর্ষণ।

মহামহিম আল্লাহ আমাদেরকে ইসলাম নামক দৌলত দান করেছেন। ব্যক্তিজীবনে সে ইসলাম মেনে চলাকে ফরজ করেছেন। পাশাপাশি সাধ্যমত তাঁর দ্বীনের সঠিক দাওয়াহ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে বলেছেন। আর সে দায়িত্ববোধ থেকেই আমরা নিজেদেরকে দায়ীয় ভূমিকায় অবতীর্ণ করি। মানুষের কাছে ইসলামের দাওয়াহ প্রদান করি। কিন্তু দাওয়াহ দিতে গিয়ে সঠিক পদক্ষেপ দিতে পারি-না বলে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জনে ব্যর্থ হই।

একজন মাছ বিক্রেতা তাঁর মাছকে যতটা সুন্দরভাবে ক্রেতার উপস্থাপন করে, একজন সবজি বিক্রেতা তাঁর সবজিকে যেভাবে ক্রেতার উপস্থাপন করে, একজন গোশত বিক্রেতা তাঁর পণ্যকে যেভাবে ক্রেতার সামনে উপস্থাপন করে – আমরা মনে হয় ইসলামকে তেমনটা গুছিয়ে মানুষের সামনে উপস্থাপন করতে পারি না। যার ফলে আমার দাওয়াহ পেয়ে মানুষ বিরক্তি বোধ করে।

মনে করুন, আপনি কোন কোম্পানির সেলসম্যান। আপনার দায়িত্ব হলো, অর্ডারকারীর কাছে কোম্পানির পণ্য পৌঁছে দেয়া। এখন, কেউ আপনাদের কোম্পানি থেকে কেক অর্ডার করলো। আর ডেলিভারির দায়িত্ব আপনাকে দেয়া হলো। তাহলে, পণ্য ডেলিভারির ক্ষেত্রে আপনি নিম্নোক্ত কোন পদ্ধতি অবলম্বন করবেন?

১) কেক-টা সুন্দর করে প্যাকেটে মুড়িয়ে, খানিকটা স্মার্ট হয়ে ক্রেতার মুখে ঢিল মেরে পৌঁছিয়ে দেয়া।

২) কেক-টা থেকে খানিকটা ভক্ষণ করে, তারপর সুন্দর করে প্যাকেটে মুড়িয়ে, স্মার্ট সেজে ক্রেতার কাছে আদবের সাথে পৌঁছিয়ে দেয়া।

৩) কেক-টা অবিকৃত রেখে, সুন্দর করে প্যাকেটে মুড়িয়ে, খানিকটা স্মার্ট হয়ে ক্রেতার কাছে আদবের সাথে পৌঁছিয়ে দেয়া।

অবশ্যই আপনি শেষোক্ত পদ্ধতিটা বেছে নেবেন। কেননা এটিই ডেলিভারির গ্রহণযোগ্য পদ্ধতি। যদি অন্য কোন পদ্ধতি বেছে নেন? তবে কোম্পানির মালিক যেমন আপনার প্রতি অসন্তুষ্ট হবে, পণ্যের ক্রেতাও আপনার উপর রাগান্বিত হবে। ফলত, আপনার চাকরি-টাই চলে যাবে।

এবার কেক-টা কে ইসলাম মনে করুন। আর সেলসম্যানের জায়গায় নিজেকে বসান। এরপর ভাবুন। ভেবে একটু বলুন তো, আপনি ইসলামকে কীভাবে ডেলিভার করবেন?

১) আপনি কি মানুষের কাছে ইসলামকে অবজ্ঞার সাথে পৌঁছে দেবেন?

২) ইসলামের কিছু বিধানকে আড়াল করে আংশিক ইসলাম সাজিয়ে গুছিয়ে পৌঁছে দেবেন?

৩) ইসলামকে অবিকৃত রেখে সুন্দর ও সাবলীলভাবে হিকমার সাথে মানুষের কাছে পৌঁছে দেবেন?

উওরটা রইলো আপনার হাতে।

পুনশচঃ ‘হিকমাহ’ শব্দের ভ্রান্ত টীকাটিপ্পনী করিয়া ব্রীড়া পাইবেন না।

সূত্র

মতামত দিন