ভ্রান্ত মতবাদ

আল্লাহর হুকুম ছাড়া গাছের পাতাও নড়ে না

মানুষের মাঝে বহুল প্রচলিত একটি কথা হচ্ছে, ‘আল্লাহর হুকুম ছাড়া গাছের পাতাও নড়ে না’। এর মাধ্যমে বোঝানো হয় যে, ‘পৃথিবীতে ক্ষুদ্র থেকে অতিক্ষুদ্র যা কিছু ঘটে থাকে তা আল্লাহর হুকুম বা আদেশেই ঘটে। কেউ যদি ভালো কাজ করে তবে তা তাঁর হুকুমে হয়। অপরপক্ষে কেউ যদি খারাপ কাজ করে, যেমন—চুরি করে, যেনা করে, অন্যায়ভাবে হত্যা করে, আল্লাহর হুকুম বা আদেশে করে।’

এ কথাটি সম্পূর্ণ সঠিক নয়। কারণ, যারা খারাপ কাজ করে, তারা তা আল্লাহর হুকুম-আদেশে করে না; বরং আল্লাহর হুকুম বা আদেশের বিপরীতে করে। কারণ, আল্লাহ হুকুম দিয়েছেন খারাপ কাজ না করতে, চুরি না করতে, যেনা না করতে, অন্যায়ভাবে হত্যা না করতে; কিন্তু তারা আল্লাহর হুকুম-আদেশ অমান্য করে এসব খারাপ কাজে জড়িত হয়।

আল্লাহর হুকুম ছাড়া কেউ যদি কিছু না করে তবে যদি অপরাধে জড়িত ব্যক্তি বলবে :

হে আল্লাহ, আমি তো তোমার হুকুম-আদেশে চুরি করেছি, যেনা করেছি, অন্যায়ভাবে হত্যা করেছি, তাহলে আমার দোষ কোথায়?

প্রশ্ন হতে পারে আমরা জানি, পৃথিবীতে ক্ষুদ্র থেকে অতিক্ষুদ্র যা কিছু ঘটে থাকে, তা আল্লাহর অগোচরে ঘটে না। তবে আমরা এক্ষেত্রে কোন বাক্য প্রয়োগ করব?

এ ক্ষেত্রে সঠিক বাক্য হচ্ছে, ‘আল্লাহর ইচ্ছা ছাড়া গাছের পাতাও নড়ে না’। পৃথিবীতে যা কিছু ঘটে সব আল্লাহর ইচ্ছায় ঘটে। ভালো-মন্দ যা কিছু ঘটে সব আল্লাহর ইচ্ছায় ঘটে থাকে। যারা অন্যায় করে তাও আল্লাহর ইচ্ছায় ঘটে। আল্লাহ ইচ্ছা করলে তা বন্ধ করে দিতে পারতেন; কিন্তু তিনি তা বন্ধ করবেন না। কারণ, মানুষকে আল্লাহ স্বাধীনতা দিয়েছেন, মানুষ তার যা ইচ্ছা করবে। তিনি তাতে বাধা দেবেন না। তবে কিয়ামতের দিন তার প্রতিদান দেবেন।

আল্লাহ যদি খারাপ কাজে বাধা দিতেন, তবে দুনিয়া মানুষের জন্য পরীক্ষা কেন্দ্র হত না। কেউ জাহান্নামে যেত না। তবে যারা খারাপ কাজ করে আল্লাহ তা করতে তাদের আদেশ দেননি। বলেননি, তোমরা অমুক অমুক খারাপ কাজ করো।

#যে_সব_কথা_যায়_না_বলা– (পর্ব : ২)

Source

মতামত দিন