সুন্নাহ

মেসওয়াক হারিয়ে যাওয়া এক সুন্নাহ

মানুষ যখন কাউকে সত্যিকার ভালোবাসে তখন তার অভ্যাসগুলো অনুসরণ করে। তার ভালোলাগার জিনিসগুলো ভালোবেসে ফেলে। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের রেখে যাওয়া অভ্যাসগুলোর মধ্যে একটি হল মেসওয়াক। অথচ এত গুরুত্বপূর্ণ সুন্নাতকে আমরা ভুলেগেছি। চলুন, মেসওয়াক সম্পর্কে জানি। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,

السواك مطهرة للفم ، مرضاة للرب

অর্থঃ মেসওয়াক দাঁত পরিষ্কার করে এবং রবের সন্তুষ্টির কারণ হয়। (নাসায়ী-১/৫০ আহমাদ-৬/৪৭)

অন্যত্র রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,

لولا أن أشق على أمتي لأمرتهم بالسواك عند كل صلاة

অর্থঃ যদি আমি আমার উম্মাতের উপর কঠিন মনে না করতাম তবে প্রতি নামাজের সময় তাদেরকে মেসওয়াকের আদেশ করতাম (বুখারি-২/২৯৯, মুসলিম-১/১৫১)

মেসওয়াক করার সময়ঃ

এমনি তো দিনেরাতে সব সময় মেসওয়াক করা মুস্তাহাব । তবে ওলামায়েকরাম কিছু ক্ষেত্রে বেশী গুরুত্ব দিয়েছেন। যেমন,

১ ওজু এবং সালাতের সময়।

২ ঘরে প্রবেশের সময় অথবা কোন মজমায় যাওয়ার সময়। যেমন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম করতেন বলে আয়েশা(রাদি) থেকে বর্ণিত আছে।

৩ ঘুম থেকে উঠে

৪ মুখে দুর্গন্ধ অনুভব হলে। চায় তা কিছু খাওয়ার কারনে হোক, খুদা-পিপাসার কারনে হোক বা অন্য যে কোন কারনে হোক।

৫ মসজিদে প্রবেশের পূর্বে

৬ কোরআন তিলয়াত বা হাদিসের দারস-এর ক্ষেত্রে।

মেসওয়াক কেমন হবেঃ

ফুকাহে কেরাম বলেছেন, যদি পিলু গাছের কাঠ (বেশী পাতা ও ডালপালাযুক্ত একপ্রকার কাঁটাওয়ালা গাছ) না পাওয়া যায় তবে খেজুরে ডাল দ্বারা মিসওয়াক করা উত্তম। জায়তুল গাছের দ্বারা মেসওয়াক করার ব্যাপারে কিছু হাদিস পাওয়া যায় যেগুলো রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম থেকে বিশুদ্ধ সূত্রে বর্ণিত না।

যে কোন পবিত্র গাছের ডাল যার দ্বারা দাঁত পরিষ্কার করা যায়, মেসওয়াক না থাকা অবস্থায় তা দিয়ে মিসওয়াক করলে মেসওয়াকের সুন্নাত আদায় হয়ে যাবে। হাতের আঙ্গুল দিয়ে করার ব্যাপারে অনেকের নিকট এখতেলাফ আছে। যেহেতু এতে দাঁত পরিষ্কার হয় কিনা প্রশ্ন থাকে। কাপড় ইত্যাদির কথা অনেকে বলে তবে এগুলোর ব্যাপারে কোন প্রমাণ পাওয়া যায় না। গাছের ডালের মেসওয়াক না থাকার অবস্থায় বর্তমানের ব্রাশ দিয়ে মেসওয়াক করলেও তা আদায় হয়ে যাবে। তবে বেশী ব্রাশ ব্যাবহার করা দাঁতের জন্য ক্ষতিকর।

ফুকাহেকেরাম বলেছেন, মাঝারি ধরণের মোটা, (হাতের ছোট আঙ্গুল পরিমাণ মোটা) মিডিয়াম লম্বা, গিরা মুক্ত, এত ভেজা না হওয়া যে বাকায় যায়। যদি এত নরমই হয় তবে তা দিয়ে পরিষ্কার করা কিভাবে সম্ভব? আবার এত শক্ত না হওয়া যে, মুখে ক্ষত হয়ে যায় বা মুখ চিরে যায়।

মেসওয়াক করার ধরনঃ

ফকাহেকেরামের মধ্যে এখতেলাফ হয়েছে, মেসওয়াক কি ডান হাত দিয়ে করবে না বাম হাত দিয়ে?

জামহুর বা সংখ্যা গরিষ্ট ওলামাদের মত হল, ডান হাত দিয়ে করা উত্তম। আর কিছু ওলামাদের মত হল বাম হাত দিয়ে করা উত্তম। তবে এই ক্ষেত্রে কোন স্পষ্ট দলীল না থাকায় যে যার সুবিধা মত করতে পারে।

আড়াআড়ি ভাবে বা চওড়াভাবে মিসওয়াক করবে। লম্বালাম্বি ভাবে করবে না। এতে দাঁতের মাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভবনা থাকে।

Source

মতামত দিন