ইসলামের ইতিহাস

ইসলামকে বুকে আগলে রেখেছে মাল্টার গুটিকতক মুসলমান!

ভূমধ্যসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ মাল্টা প্রজাতন্ত্রের ৬ হাজার মুসলমান বৈরী পরিবেশেও ধর্ম চর্চা ও অনুশীলন অব্যাহত রেখেছেন। মাল্টা প্রজাতন্ত্রে ৩৬০টি গির্জা থাকলেও মসজিদ আছে মাত্র একটি।
.
৯০৯ খ্রিস্টাব্দে মাল্টা মিসরীয় ফাতেমীয় আমিরদের দ্বারা শাসিত ছিল। আরব মুসলমানরা এই দ্বীপে কৃষি, নতুন জাতের ফল, তুলা এবং সিসলো-আরবি ভাষার উৎকর্ষ সাধনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ১২২৪ খ্রিস্টাব্দে প্রথম ফ্রেডারিকের শাসনামলে মাল্টা থেকে মুসলমানদের বহিষ্কার করা হয়। বর্তমানে মুসলমানরা অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের সঙ্গে সম্প্রীতিমূলক আচরণ করলেও পরিস্থিতি অনেক সময় ঘোলাটে হয়ে ওঠে।


.
ভূমধ্যসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ মাল্টা প্রজাতন্ত্রের ৬ হাজার মুসলমান বৈরী পরিবেশেও ধর্ম চর্চা ও অনুশীলন অব্যাহত রেখেছেন। মাল্টা প্রজাতন্ত্রে ৩৬০টি গির্জা থাকলেও মসজিদ আছে মাত্র একটি। লিবিয়ার ওয়ার্ল্ড ইসলামিক কল সোসাইটি ১৯৭৮ সালে মসজিদটি নির্মাণ করে। লিবিয়ার সাবেক রাষ্ট্রপ্রধান মুয়াম্মার আল গাদ্দাফি ইসলামিক কালচারাল সেন্টারের ভিত্তিস্থাপন করেন। সেন্টারের অধীনে রয়েছে মসজিদ, মুসলিম শিশুদের প্রাথমিক বিদ্যালয়, প্রশাসনিক দফতর, গ্রন্থাগার ও মিলনায়তন।
.
মাল্টার সাধারণ জনগণকে ইসলামী আদর্শে উদ্বুদ্ধ ও আরবি ভাষার প্রতি আগ্রহী করে তোলার জন্য এ সেন্টারে নিয়মিত সংলাপ, কর্মশালা ও প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। কারাবন্দী, দুস্থ, অনাথ ও দরিদ্র জনগণকে সাহায্য করার জন্য রয়েছে এ সেন্টারের বিশেষ প্রকল্প। প্রতি বছর ঈদুল ফিতরের নামাজ শেষে ইসলামিক কালচারাল সেন্টার সংবর্ধনার আয়োজন করে থাকে। মাল্টার প্রধানমন্ত্রী, কূটনৈতিক মিশনের সদস্যবর্গ ও বিশিষ্ট নাগরিকরা এতে যোগ দেন।
.
মাল্টা প্রজাতন্ত্রের শত শত ধর্মপ্রাণ মুসলমান নির্দিষ্ট ফ্ল্যাটে নামাজ আদায়ে কর্তৃপক্ষের বাধার প্রতিবাদে সম্প্রতি রাজপথে নেমে পড়েন এবং রাস্তায় নামাজ আদায় করেন। তারা নামাজ আদায়ের জন্য নির্ধারিত ফ্ল্যাট খুলে দেয়ার দাবি জানান। লাইসেন্স না থাকার অভিযোগে মাল্টা সরকারের পরিবেশ ও পরিকল্পনা কর্তৃপক্ষ মুসলমানদের নামাজ আদায়ের জন্য নির্ধারিত ফ্ল্যাটগুলো তালাবদ্ধ করে দেয়। মুসলমানদের বক্তব্য হচ্ছে-আল্লাহ তায়ালার ইবাদত করার জন্য লাইসেন্সের প্রয়োজন পড়বে কেন? যুগ যুগ ধরে মুসলমানরা তাদের নিজস্ব ফ্ল্যাটে নামাজ আদায় করে আসছেন।
.
মুসলমানদের ফ্ল্যাটের পাশাপাশি অপরাপর ফ্ল্যাটে ক্যাথলিক খৃস্টানরা সঙ্গীতের মাধ্যমে প্রার্থনা করে থাকেন, তখন তো পরিবেশ দূষণের প্রসঙ্গ ওঠে না।
মাল্টাতে অবস্থান করেই আল ইদরিসি ‘আল কিতাব আর-রওজরী’ শীর্ষক ভূগোল গ্রন্থ’ রচনা করেন। বহু বছর মাল্টার ভাষা ছিল আরবি এবং এখনও বহু জায়গার নামের সঙ্গে মুসলমানদের ঐতিহ্য বিজড়িত।
.
প্রতি বছর মাল্টার বহু মুসলমান হজ ও ওমরাহ পালনের উদ্দেশে সৌদি আরব গমন করেন। সম্প্রতি মাল্টা কর্তৃপক্ষ সৌদি আরবের সঙ্গে আন্তর্জাতিক অপরাধ দমনে যৌথ কর্মপ্রয়াসের একটি সমঝোতা চুক্তি সই করে। সবমিলিয়ে কিছুটা বৈরী পরিবেশের মধ্যেও মাল্টা প্রজাতন্ত্রের মুসলমানরা তাদের ধর্মীয় স্বকীয়তা রক্ষা করে টিকে আছেন।
.
‪#‎দেশে_দেশে_ইসলাম‬
‪#‎দেশে_দেশে_ইসলাম_ও_মুসলিম‬

মতামত দিন

কমেন্ট